ঈমানের অগ্নি পরীক্ষা

হযরত আম্মার (রাঃ) ও তাঁর পিতা মাতা

আম্মার (রাঃ) ও তাঁর পিতা মাতা ইসলাম গ্রহণ করার পরে তাঁদের ওপর শুরু হয় কাফেরদের পাশবিক নির্যাতন। মক্কার বালুকাময় উত্তপ্ত প্রান্তরে আম্মার (রাঃ) কে শাস্তি দেওয়া হতো, প্রহারের যণ্ত্রনা সইতে না পেরে তিনি বারবার অজ্ঞান হয়ে পরতেন। রাসুল (সঃ) সে পথ দিয়ে যারার সময় আম্মারকে সবর করতে উৎসাহিত করতেন এবং জান্নাতের সুসংবাদ দিতেন।

তাঁরা পিতা ইয়াসিরের উভয় পায়ে দুটি দড়ি বেঁধে দড়ির দুই প্রান্ত দুটি উটের পায়ে বেঁধে উট দুটিকে বিপরীত দিকে চালনা করা হলে ইয়াছিরের শরীর দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে যায় আর তখনই তিনি শাহাদাত লাভ করেন।
আম্মারের মাতা হযরত সুমাইয়া (রাঃ) স্বামীর উপর নির্মম অত্যাচার পরিশেষে শাহাদাত লাভের দৃশ্য দেখেও বিন্দুমাত্র বিচলিত না হয়ে পড়তে লাগলেন লা ইলাহা ইল্লালাহু মুহাম্মুদুর রাসুলুল্লাহ। এতে নরপশু আবু জাহেল অধিকতর ক্রুদ্ধ হয়ে সুমাইয়া (রাঃ) কে বর্শা বিদ্ধ করে শহীদ করেন। নারীদের মাঝে তিনিই প্রথম শাহাদাত বরন করেন।

ইসলামের জন্য জীবন দিতে হয়েছে এমন অসংখ্য সাহাবী রয়েছে অনেকের সহ্য করতে হয়েছে নিষ্ঠুরতম নির্যাতন। কঠিনতর নির্যনতের পরেও তাঁরা ইসলাম ত্যাগ করেননি। দিয়েছেন ঈমানের অগ্নি পরীক্ষা করেছেন শাহাদাত বরণ।
আল্লাহ আমাদের কে সাহাবীদের ঈমানী শক্তীতে বলীয়ান করুন। আমিন ।

Tagged , , , ,

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: